চিন্তা


চিন্তা ও তৎপরতার পত্রিকা

কোন সাধনে মিলবে রে সেই পরম ধন

কোন সাধনে মিলবে রে সেই পরম ধন
ধান্ধাবাজের ধোঁকায় পড়ে আন্দাজে করলি সাধন।।

যদি ভোগ দিলে ভগবান মিলতো আল্লা মিলতো শিন্নিতে
বড় বড় ভোগ সাজায়ে রাজায় পারতো কিনিতে।।

শুনি জাহেরে - বাতেনে মওলা
ভক্ত লয়ে করে খেলা
কোন রূপে সাঁইয়ের নিত্য লীলা
     কোন মোকামে দরশন।।

যদি মক্কা গেলে খোদা মিলতো শিব মিলতো কাশিতে
বৃন্দাবনে কৃষ্ণ মিলতো কেউ চাইতো না আসিতে ।। 

কোন মোকামে আছে বদ্ধ
কোন বস্তু তার প্রিয় খাদ্য
   কেমনে করি আয়োজন।।

মন্দিরেতে মূর্তি গড়ে ধ্যান করে মনে মনে
আকাশেতে দুহাত তুলে সিজদা দিচ্ছে জমিনে

আমি দেখি নাই যাহার মূর্তি
তার সাথে কি হয় পিরিতি?
রাধা বল্লভের এই পাগলা গীতি
     বলছে রে পাগল সে জন।

(আরো পড়ূন)

এই বেলা তোর ঘরের খবর জেনে নে রে মন

এই বেলা তোর ঘরের খবর জেনে নে রে মন
কেবা জাগে কেবা ঘুমায় কে কারে দেখায় স্বপ্ন।।

শব্দের ঘরে কে বারাম দেয়
নিঃশব্দে কে আছে সদাই
যেদিন হবে মহাপ্রলয়
         কে কার করে দমন।।

দেহের গুরু আছে কেবা
শিষ্য হয়ে কে দেয় সেবা
যেদিন তাই জানতে পাবা
         কলির ঘোর যাবে তখন।।

যে ঘরামি ঘর বেঁধেছে
কোনখানে সে বসে আছে
সিরাজ সাঁই কয় তাই না খুঁজে
         দিন তো বয়ে যায় লালন।।

(আরো পড়ূন)

খুঁজে ধন পাই কী মতে

খুঁজে ধন পাই কী মতে?
পরের হাতে (ঘরের) কলকাঠি।।

শব্দের ঘরে নিঃশব্দের কুঁড়ে
সদায়  তারা আছে জুড়ে
দিয়ে জীবের নজরে
     ঘোর টাটি।।

আপন ঘরে পরের কারবার
আমি দেখলাম নারে (তার) বাড়ী ঘর
আমি বেহুশ মুটে
      কার মোট খাটি।।

থাকতে রতন আপন ঘরে
একি বেহাত আজ আমারে
লালন বলেরে মিছে
      ঘর বাটি।।

(আরো পড়ূন)