চিন্তা


চিন্তা ও তৎপরতার পত্রিকা

খাঁচার ভিতর অচিন পাখি

খাঁচার ভিতর অচিন পাখি
     কেমনে আসে যায়।
তারে ধরতে পারলে মনবেড়ি
     দিতাম পাখির পায়।।

আটকুঠুরী নয়দরজা আঁটা
মধ্যে মধ্যে ঝরকা কাটা।
তার উপরে সদর কোঠা
     আয়নামহল তায়।।

কপালের ফের নইলে কি আর
পাখিটির এমন ব্যবহার।
খাঁচা ভেঙ্গে পাখি আমার
     কোন বনে পালায়।।

মন তুই রইলি খাঁচার আশে
খাঁচা যে তোর কাঁচা বাঁশে।
কোন দিন খাঁচা পড়বে খসে
     ফকির লালন কেঁদে কয়।।

 

(আরো পড়ূন)

কে দেখেছে গৌরাঙ্গ চাঁদেরে

কে দেখেছে গৌরাঙ্গ চাঁদেরে
গৌর গোপীনাথ মন্দিরে গেল
     আর তো এলো না ফিরে।

যার লাগি কুল গেল
সেই আমারে ফাঁকি দিল
কলঙ্কী নাম প্রকাশ হল
     কেবল গো আজ আমারে।

দরশনে দুর্গতি যায়
পরশে পরশ করে নিশ্চয়
হেন চাঁদ হইয়ে উদয়
     লুকাইল কোন শহরে।

শুধু গৌর নয়– গৌরাঙ্গ
অন্তরে আছে গৌরাঙ্গ
লালন বলে, হেন সঙ্গ
     পেলাম না কর্মের ফেরে।।

(আরো পড়ূন)

দেখবি যদি সোনার মানুষ

দেখবি যদি সোনার মানুষ
দেখে যারে মন পাগলা
অষ্টাঙ্গ গোলাপী বর্ণ
     পূর্ণ কায়া ষোলকলা ।।

ময়ূরীর কেশ ফিঙেরি নাক
দেখবি যদি তাকিয়ে দেখ
ঐ রূপ দেখে চুপ মেরে থাক
     বংশহীন তাঁর হংস গলা ।।

উরু দুটি তাঁর দেখতে গোল
সিংহ মাজা দেখি কেবল
তাহাতে রয়েছে যুগল
     অনাদি কালা ।।

বক্ষস্থলে চাঁদের ছটা
নাভি মূলে ঘোরে ল্যাটা
দুটি বাহু বেলন কাটা
    দুটি হস্ত জবা ফোলা ।।

যে দেখে সে মহা যোগী
সে হয় না অন্যভোগী.
লালন কয় সেই তো ত্যাগী
     হয়েছে তাঁর পূর্ণ কলা ।।

(আরো পড়ূন)

আপন আপন খবর নাই

আপন আপন খবর নাই
গগনের চাঁদ ধরবো বলে
     মনে করি তাই ।।

যে গঠেছে এ প্রেমতরী
সেই হয়েছে চরণদাঁড়ি
কোলের ঘোরে চিনতে নারি
     মিছে গোল বাঁধাই ।।

আঠারো মোকামে জানা
মহারসের বারামখানা
সে রসের ভিতরে সে-না
     (আছে) আলো করে সদাই ।।

না জেনে চাঁদ ধরার বিধি
কথায় কৈটী সাধন সাধি
লালন বলে বাদি ভেদি
     বিবাদী সদাই ।।

(আরো পড়ূন)

কেন খুঁজিস মনের মানুষ

কেন খুঁজিস মনের মানুষ বনে সদাই
এবার নিজ আত্মরূপে যে আছে
     দেখো সেই রূপ দীন দয়াময় ।।

কারে বলি জীবাত্মা
কারে বলি স্বয়ং কর্তা
আবার চোখে লাগে ছটা
     ভেল্কি লেগে মানুষ হারায় ।।

বলবো কি তার আজব খেলা
আপনি গুরু আপনি চেলা
পড়ে ভূত-ভুবনের পণ্ডিত যেজন
     আত্মতত্ত্বের প্রবর্ত নয় ।।

পরমাত্মাকে রূপ ধরে
জীবাত্মাকে হরণ করে
লোকে বলে যায় রে নিদ্রে
সে যে অভেদ ব্রহ্ম ভেবে লালন কয় ।।

(আরো পড়ূন)