চিন্তা


চিন্তা ও তৎপরতার পত্রিকা

মেয়ে গঙ্গা যমুনা সরস্বতী/

মেয়ে গঙ্গা যমুনা সরস্বতী রে
মাসে মাসে জোয়ার আসে ত্রিবেণির সংহতিরে

যখন নদী হয় উতলা তিন জন মেয়ের লীলা খেলা
একজন কালা একজন ধলা একজন লাল মতি
সেই নদীতে চান করিলে রং হয় গৌর মতিরে।।

মেয়ের গুণ কে বলতে পারে কিঞ্চিত জানে মহেশ্বরে
একজন শিরে একজন বুকে ধরে পশু পতি
রসিক মেয়ে থাকলে ঘরে রসের জগৎ দেখে রে।।

জ্ঞান নয়নে দেখ চেযে পুরুষ নয় সকলই মেয়ে
সাক্ষী তাহার গোপীর মেয়ে গোকুলে বসতি
সতী হয়ে ধর্ম রাখে লয়ে উপপতি রে।।

এবার মলে মেয়ে হব কালারে নারী বানাব
মহৎ গুন চেয়ে নেব সাধনের রীতি নীতি
গোঁসাই হাওড়ে বলে রাখব না আর বংশে দিতে বাতিরে।।

 

(আরো পড়ূন)

আমার চরকা ভাঙা টেকো আড়ানে

আমার চরকা ভাঙা টেকো আড়ানে
আমি টিপে সোজা করব কত
আর তো প্রাণে বাঁচিনে ।।

একটি আঁটি আরকটি খসে
বেতো চরকা লয়ে যাব কোন দেশে
আর কতকাল জ্বলবো এ হালে
এ বেতো চরকার গুণে ।।

কিবা ছুতোর ব্যাটার গুণ পরিপাটি
ষোল কলে ঘুরায় টেকোটি
তার একটি কলে বিকল হলে
সারতে পারে কোনজনে ।।

সামান্য কাঠ পাটের চরকা নয়
যে খসলে খুঁটো খেটে আঁটা যায়
মনবদেহ চরকা সেহ
লালন কি তার ভেদ জানে ।।

(ভোলাই শার খাতা, গান নং ১২৩৯; পৃষ্ঠা ৬৭)

 

 

(আরো পড়ূন)